Musings Of Soul

Advertisements

বন্ধু

বৃষ্টি পড়ছে ঝমঝম করে। ঘরে ঘরে খিচুড়ি আর ডিম ভাজার গন্ধ ম ম করছে। ছুটির দিনে সবাই টাপুর টুপুর বৃষ্টি পরা দেখতে বেশ উপভোগ করছে। বিশু পাগলার অবশ্য আজ একটুও ভালো লাগছে না। বৃষ্টিতে ফুটপাথ ভিজে গেছে। সকাল থেকেই তাই ওর চটের থলেগুলো নিয়ে বাস স্ট্যান্ডের ভেতর বসেছে। গায়ে বৃষ্টি অল্প স্বল্প লাগলেও মাথাটায় জলে … Continue reading বন্ধু

বেলুনওয়ালা

দুর্গাপুজোর পঞ্চমী। কলকাতার মানুষের পুজো পঞ্চমী থেকেই শুরু হয়ে যায়। ছোটো থেকেই রতন এইসব দেখে আসছে। ওরও বাড়ি যাদবপুরের রেল স্টেশনের ধারে কামারপাড়ায়। বাড়ি থেকে একশো হাত এগোলেই ওদের পাড়ার পুজো। এতদিন ধরে রতনও পঞ্চমীর দুপুরে স্কুল থেকে ফিরেই মায়ের কাছে ভাত মাছ খেয়েই দৌড় লাগাতো পাড়ার পুজোর প্যান্ডেলে। ওর সমবয়সী বন্ধুরা – মেনি, পাপাই, … Continue reading বেলুনওয়ালা

মায়ের_স্নেহছায়া

#মৈত্রেয়ী_ঘোষ #অনুগল্প © মৈত্রেয়ী ঘোষ ১ ওদের একতলা টিনের ছাউনি ঘরের জানলা দিয়ে মিনি দেখল পাশের বাড়ির টিনা দিদি এক তোড়া গোলাপ ফুল নিয়ে ঘরে ঢুকছে । মাসিমা দরজা খুলতেই বাচ্চাদের মত ঝাঁপিয়ে পড়ে বলল, “হ্যাপি মাদারস’ ডে, মম্‌।” বলেই মাসিমাকে ফুলগুলো দিয়ে আলিঙ্গন করে মোবাইলে পটাপট ছবি তুলতে থাকে। অন্যদের মায়ের নিশ্চিন্ত আঁচলের স্পর্শ … Continue reading মায়ের_স্নেহছায়া

মিতিনের চিঠি 

মিতিন আজ দুপুরে স্কুল থেকে ফিরে আবার ডাকবাক্সটা খুলে দেখেছে। এখনও খালি- হয় কোনো চিঠি নেই নয় পিয়নকাকু পরে আসবে। মিতিনের মা প্রায়ই দেখেন মেয়ের ডাকবাক্স খোলাপড়া, সবই বোঝেন তাই আর কিছু বলেন না। "কীরে মিতিন, আয় এবারে খেয়ে নে, সেই কখন এসেছিস। দেখ আজ তোর জন্য মাংস রেঁধেছি।" মিতিন বাধ্য মেয়ের মতো রান্না ঘরের … Continue reading মিতিনের চিঠি 

নববর্ষের রসগোল্লা

আজ রবিবার, তায় পয়লা বৈশাখ। মন যেখানে উড়ু উড়ু হয়ে নেচে ওঠার কথা সেখানে এক্কেবারে ঝিমিয়ে রয়েছে। বুঝতে অসুবিধা হয় না, রিমঝিমের আজ মন খারাপ কেন : পয়লা বৈশাখে কলকাতার বাইরে থাকা বাঙালির একা ফ্ল্যাটে থাকলে মনের অবস্থা এর থেকে ভালো আর কি করে হয় বলুন। আর তার থেকেও বড় কথা হলো, রিমঝিম নামে রিমঝিম … Continue reading নববর্ষের রসগোল্লা

কবিতা যখন বৈতরিণী

আজ আবার খুলে বসেছি সেই ছোটবেলার কবিতার খাতাটা যে আমার সব অনুভূতির চিহ্ন আজ ও বয়ে নিয়ে আছে, তাকেই আমি এতদিন সবকিছুর ভিড়ে হারিয়ে দিয়েছিলাম। নাঃ, সে তো যেতে চায়নি হারিয়ে, আমিই তাকে দূরে সরিয়ে দিয়েছিলাম তিল তিল করে। তার মুখে শব্দ নেই, তাই তার অভিমানের কোনো মূল্য দিইনি। জানি না, সেই সাথে সাথে নিজেকেও … Continue reading কবিতা যখন বৈতরিণী

রক্তক্ষরণ

আজ মনটা বড়ো ক্ষত বিক্ষত, যে আশার মোড়কে জুড়িয়ে ছিলাম তাকে - রাঙা আভায় রাঙিয়ে ছিলাম যে মোড়ক আর তার অন্তরের গোলাপটাকে, আজ সেই রুপোলি মোড়ক ভেঙে গেল। আর সেই গোলাপী মনটা শুকিয়ে গেল সত্যের মুখোমুখি হয়ে। আবার। মানবী হৃদয়ের সবচেয়ে সুন্দর অনুভূতিগুলোর মৃত্যু হল তিলতিল করে। আবার। দ্বিতীয়বার। একদিন ভেবেছিলাম দ্বিতীয়বার এই ভুল আর … Continue reading রক্তক্ষরণ